trump putin Russia usa america
হেলসিঙ্কিতে ডোনাল্ড ট্রাম্প ও ভ্লাদিমির পুতিন একান্ত বৈঠক শেষে যৌথ সংবাদ সম্মেলন করেন। এ সময় পুতিনের কাছ থেকে ফুটবল নেন ট্রাম্প। ছবি: রয়টার্স

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প রাশিয়ান ওলিগারচ ওলেগ দেরিপাসকা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে জড়িত তিনটি প্রতিষ্ঠানের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়েছেন। রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক রয়েছে ওলিগারচ ওলেগ দেরিপাসকার।

যুক্তরাষ্ট্রের অ্যালুমিনিয়াম শিল্পপ্রতিষ্ঠান রাসাল, এন‍+ গ্রুপ ও জেএসসি ইউরোসিবএনারগোর ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হয়েছে। এগুলো দেরিপাসকার নিয়ন্ত্রণে ছিল। যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচনে রাশিয়ার প্রভাব খাটানোর অভিযোগের সঙ্গে যুক্ত ওলিগারচ। ডেমোক্র্যাটরা চেয়েছেন ওলিগারচের ওপর নিষেধাজ্ঞা অব্যাহত থাকুক।

গত এপ্রিল মাসে ইউএস রাসাল, এন‍+ গ্রুপ ও জেএসসি ইউরোসিবএনারগোকে কালো তালিকাভুক্ত করা হয়। ট্রাম্প প্রশাসন অভিযোগ করেছে যে এই প্রতিষ্ঠানগুলো রাশিয়া থেকে লাভবান হচ্ছে। বিশ্বে ক্ষতিকর কাজের সঙ্গে এটি যুক্ত।

দেরিপাসকার সঙ্গে জড়িত বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম অ্যালুমিনিয়াম প্রতিষ্ঠান রাসাল। এ মাসের শুরুতে রাসালের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞার চেষ্টা বন্ধ করে দেন সিনেটে রিপাবলিকানরা। রিপাবলিকান নেতারা ও ট্রাম্প বলেন, এতে বিশ্বব্যাপী অ্যালুমিনিয়ামশিল্পের ওপর প্রভাব পড়তে পারে। ট্রাম্প ও রিপাবলিকানরা এমনও বলেন, দেরিপাসকা এসব প্রতিষ্ঠানে শেয়ার কমিয়ে দিয়েছেন। তিনি এখন এই প্রতিষ্ঠানগুলো আগের মতো নিয়ন্ত্রণ করছেন না।

বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানগুলো তিনটি প্রতিষ্ঠানের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নিতে ট্রাম্প প্রশাসনের ওপর চাপ দেয়।

গতকাল রোববার যুক্তরাষ্ট্রের অর্থ মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে জানায়, তিনটি প্রতিষ্ঠান বলেছে, তাদের সঙ্গে রাশিয়ার কোটিপতি দেরিপাসকার আর কোনো সম্পর্ক নেই।

এন+ প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান লর্ড বারকার বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা নীতির সাড়ায় এই প্রথমবার লন্ডনের তালিকাভুক্ত রুশ প্রতিষ্ঠানের বড় শেয়ার হোল্ডার সরে দাঁড়াল।

২০১৬ সালে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রাশিয়া মধ্যস্থতা করেছে বলে অভিযোগ রয়েছে। আন্তর্জাতিক সাইবার হামলার সঙ্গেও রাশিয়া জড়িত বলে অভিযোগ রয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here