বিপিএল bpl logo bpl wallpaper

বিপিএলের ইতিহাসে প্রথম সুপার ওভার। সুপার ওভারে গতকাল প্রথমে ব্যাট করে চিটাগং ভাইকিংস করেছিল ১১ রান। জবাবে খুলনা টাইটান্স করে ১০। সুপার ওভারে ১ রানের সুপার জয় পায় চিটাগং ভাইকিংস।

খুলনার ১৫১ রানের জবাবে চিটাগং ভাইকিংস ১৫১ করে ম্যাচ ট্রাই করার পর যেন বাড়তি উত্তেজনায় কাঁপতে থাকে মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়াম।

সুপার ওভারের এক ওভার বল করতে খুলনা টাইটান্স বেছে নেন পাকিস্তানি বোলার জুনায়েদ খানকে। চিটাগং ভাইকিংসের টিম ম্যানেজমেন্ট দুই বিদেশি ক্রিকেটার কে ব্যাটিংয়ের জন্য নির্বাচন করেন। দক্ষিণ আফ্রিকার দুই ব্যাটসম্যান ক্যামেরন ডেলপোর্ট ও রবি ফ্রাইলিস্ক। চিটাগং ভাইকিংস ৬ বলে ১১ রান করেন। খুলনা টাইটান্স এর টার্গেট ১২।

সুপার ওভারে 12 রান তো মোটেও আহামরি টার্গেট নয় কিন্তু মনে বিশ্বাস ছিল মুশফিকের বল তুলে দেন লড়াকু ফ্রাইলিস্কের হাতে।

খুলনা টাইটান্স ২২ গজে পাঠিয়ে দেন তাদের দুই বিগ হিটার ওয়েস্ট ইন্ডিজের কার্লোস ব্রাথওয়েট ও ইংলিশ তারকা ডেভিড মালান কে। কিন্তু সব মিলে সুপার ওভারে তারা করতে পারল ১০ রান।
জয় নিশ্চিত হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে দৌড়ে গিয়ে লাফিয়ে রবি ফ্রাইলিস্কের কোলে উঠে যান চিটাগং ভাইকিংস দলপতি মুশফিকুর রহিম।

অথচ সুপার ওভারের এই ম্যাচে দেখা গেল না দিলসান ট্রফির শেষ বলে ছয় মেরে ম্যাচ জেতানো মাহমুদুল্লাহ রিয়াদকে।

এই সময় যাত্রাবাড়ী থেকে খেলা দেখতে আসা এক ক্রিকেটপ্রেমিক বলেন ওয়ানডে ক্রিকেটে নিঃসন্দেহে বাংলাদেশ একটি পরাশক্তির নাম। তারা আস্তে আস্তে টেস্ট ও টি-২০ তে ও উন্নতি করছে। বিপিএল এর প্রধান উদ্দেশ্যই হচ্ছে এখান থেকে টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে জন্য ভালো প্লেয়ার খুঁজে বের করা। অথচ সুপার ওভারে দেখা গেল না কোন বাংলাদেশী প্লেয়ার। বিদেশি প্লেয়ার দের উপর আস্থা রেখেছেন দুটি দল। কেন আস্থা রাখতে হবে বিদেশি প্লেয়ার দের উপর? সুপার ওভার খেলার মত কোন খেলোয়াড় কি বাংলাদেশে নেই?

যদি বিদেশি প্লেয়ার দের উপর এই আস্থা রাখতে হয় তাহলে কি লাভ এই বিপিএলের আসর বসিয়ে। এই বিষয়গুলোর দিকে এখনই বিসিবি কে নজর দিতে হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here